HS Exam Update: উচ্চমাধ্যমিকে নম্বর বসবে ডিজিটালি, বড় আপডেট আসছে রাজ্যে – Bengali News | WBCHSE is planning for big digital upgradation in Higher Secondary Exam Process

0

পরীক্ষার্থীদের ভিড় (প্রতীকী ছবি)Image Credit source: TV9 Bangla

কলকাতা: উচ্চমাধ্যমিক পরীক্ষা ব্যবস্থায় আসছে আমূল পরিবর্তন। জোর দেওয়া হচ্ছে ডিজিটাল ব্যবস্থার উপর। এবার আর খাতায় কলমে নম্বর নয়, এবার ডিজিটাল পোর্টালে নম্বর আসবে। যিনি খাতা দেখছেন, তিনি নম্বর দিলেই তা সরাসরি চলে যাবে ডিজিটাল পোর্টালে। ব্যাপারটা কেমন? সহজ ভাষায় বলতে গেলে, এতদিন পরীক্ষক খাতা দেখে, ট্যাবুলেশন শিটে নম্বর দিয়ে তা পাঠিয়ে দিতেন। কিন্তু এবার ডিজিটাল ব্যবস্থাপনায় এই ট্যাবুলেশন শিটের আর বিশেষ গুরুত্ব থাকছে না। সরাসরি পোর্টালে সংশ্লিষ্ট উচ্চমাধ্যমিক পরীক্ষার্থীর রোল নম্বরের সঙ্গে প্রাপ্ত নম্বর আপডেট করে দিতে পারবেন পরীক্ষক।

সামনেই উচ্চমাধ্যমিক পরীক্ষা রয়েছে। ১৬ ফেব্রুয়ারি থেকে উচ্চমাধ্যমিক পরীক্ষা শুরু হচ্ছে। তাহলে কি এই বছরের পরীক্ষার্থীদের নম্বরও এভাবে ডিজিটালি আপডেট হবে? সে সম্ভাবনা অবশ্য কম। কারণ, এই পোর্টাল এখনও তৈরি হয়নি। যা জানা যাচ্ছে, ওয়েবলকে এই পোর্টালের কাজের দায়িত্ব দেওয়া হয়েছে এবং নির্দেশ দেওয়া হয়েছে ৬ মাসের মধ্যেই এই কাজ শেষ করার জন্য। এর পাশাপাশি আরও একটি বড় চমক থাকছে এই ডিজিটাল সিস্টেমে। এই কাজ একবার সম্পূর্ণ হয়ে গেলে ৩০ বছরের পুরনো উচ্চমাধ্যমিক সার্টিফিকেটও পাওয়া যাবে অনলাইনে। ১৯৭৮ সালের পর থেকে উচ্চমাধ্যমিক পরীক্ষার সব সার্টিফিকেট এবার থেকে ডিজিটালি পাওয়া যাবে এই সিস্টেমের মাধ্যমে। ফলে দ্রুত এই কাজ শেষ করতে পারলে এবার সব সার্টিফিকেটই মিলবে সহজে।

এই খবরটিও পড়ুন

নতুন এই ব্যবস্থা সম্পর্কে শিক্ষামন্ত্রী ব্রাত্য বসুকে প্রশ্ন করা হলে তিনি বলেন, ‘মুখ্যমন্ত্রী যে ডিজিটাইজেশনকে শিক্ষার প্রসারের ক্ষেত্রে একটি বড় হাতিয়ার করতে চেয়েছেন, আজ উচ্চমাধ্যমিক শিক্ষা সংসদ তার এক নতুন সাক্ষর রাখল। আমার মতে, এর ফলে পরীক্ষা ব্যবস্থা অনেক স্বচ্ছ হয়ে যাবে। গোপনীয়তা বজায় থাকবে। মাধ্যমিকে কিআর কোড ব্যবহার করে আমরা ব্যাপক সাফল্য পেয়েছি। আমার ধারণা, এর ক্ষেত্রেও একটি যুগান্তকারী পরিবর্তন আসবে এবং অন্যান্য রাজ্যও এটিকে অনুসরণ করতে বাধ্য হবে।’

Source link

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

You may have missed