T20 World Cup 2024: বিশ্বকাপ জিততে চাইলে… রোহিত অ্যান্ড কোং-কে লাখ টাকার পরামর্শ বীরুর – Bengali News | Virender Sehwag says what Team India is needs to win ICC trophy, watch video

0

T20 World Cup 2024: বিশ্বকাপ জিততে চাইলে… রোহিত অ্যান্ড কোং-কে লাখ টাকার পরামর্শ বীরুরImage Credit source: BCCI

কলকাতা: টিম ইন্ডিয়ার বিশ্বকাপ ট্রফি জয়ের খরা কবে কাটবে? ২০১১ সালের পর থেকে ভারতীয় টিমের কাছে বিশ্বকাপ ট্রফি অধরাই থেকে গিয়েছে। গত বছর দেশের মাটিতে ওডিআই বিশ্বকাপ জয়ের সুবর্ণ সুযোগ ছিল রোহিত-বিরাটদের কাছে। কিন্তু আমেদাবাদের নরেন্দ্র মোদী স্টেডিয়ামে প্যাট কামিন্সের অস্ট্রেলিয়ার কাছে বিশ্বকাপ ফাইনালে হেরেছিল রোহিত শর্মার ভারত। সামনে ফের একটা বিশ্বকাপ। মেন ইন ব্লুর কাছে সুযোগ রয়েছে ট্রফি ক্যাবিনেটে আরও একটি টি-২০ বিশ্বকাপ (T20 World Cup 2024) ট্রফি তোলার। কিন্তু তার জন্য ভারতীয় টিমকে কী করতে হবে? অবশ্যই ভালো পারফর্ম করতে হবে। আর? ভারতের প্রাক্তন ক্রিকেটার বীরেন্দ্র সেওয়াগ (Virender Sehwag) জানিয়েছেন, ঠিক কোন জিনিসটা এখন মিসিং ভারতীয় টিমে এবং ড্রেসিংরুমে।

২০১৩ সালে ভারত শেষ বার আইসিসি চ্যাম্পিয়ন্স ট্রফি জিতেছিল। মহেন্দ্র সিং ধোনি তখন ছিলেন ভারত অধিনায়ক। তিনিই ভারতকে প্রথম টি-২০ বিশ্বকাপ ট্রফি এনে দিয়েছিলেন। এ বার রোহিত শর্মার পালা এই তালিকায় লম্বা করার। সম্প্রতি এক ইভেন্টে ভারতের প্রাক্তন ক্রিকেটার বীরেন্দ্র সেওয়াগ জানিয়েছেন, তিনি মনে করেন ভারতীয় ক্রিকেটারদের ভয়ডরহীন খেলা উচিত।

সম্প্রতি সোশ্যাল মিডিয়ায় বীরুর এক ভিডিয়ো ভাইরাল। যেখানে তাঁকে বলতে শোনা যায়, ‘আমরা যদি শেষ ওডিআই বিশ্বকাপ ফাইনাল দেখি, যেখানে অস্ট্রেলিয়ার কাছে ভারত হেরেছিল, সেখানে টিমের কেউ ১১ ওভারের পর থেকে ৪০ ওভার অবধি ভয়ডরহীন খেলেনি। আমরা মাত্র ১টা বা ২টো চার মেরেছিলাম।’

এরপরই বীরু নিজের খেলার সময়ের কথা উল্লেখ করে বলেন, ‘আমি আমার উদাহরণ দিই। যখন আমি ভারতীয় টিমের অংশ ছিলাম, ২০০৭-০৮ থেকে ২০১১ ওডিআই বিশ্বকাপ অবধি আমরা প্রতিটা ম্যাচকে নকআউট ম্যাচ হিসেবে দেখতাম। যেমন বিশ্বকাপের সেমিফাইনাল ম্যাচ, আমরা হারলেই টুর্নামেন্ট থেকে ছিটকে যাব। তাই আমরা ২০০৭-০৮ থেকে ২০১১ সাল অবধি বেশ কয়েকটি টুর্নামেন্টে জিতেছিলাম এবং সে বারের বিশ্বকাপের প্রস্তুতি নিয়েছিলাম।’

বীরুর কথায়, বর্তমান ভারতীয় টিমও তাঁদের সময়কার পন্থা অবলম্বন করতে পারে। তিনি বলেন, ‘এই ভারতীয় টিমও সেটা করতে পারে। নিজেদের প্রত্যেকটা ম্যাচকে নকআউটের ম্যাচ ভাবতে পারে। যে আমরা যদি ম্যাচ হারি, তা হলে টুর্নামেন্ট থেকে ছিটকে যাব। তা হলেই মানসিকতা বদলে যাবে। আর ড্রেসিংরুমে এই মানসিকতাটাই প্রয়োজন। নির্ভয়ে খেলতে হবে, সাহসিকতা নিয়ে খেলতে হবে, কিছুটা ঝুঁকি নিয়ে খেলতে হবে। আমার মনে হয় ভারতীয় টিমে এটার অভাব রয়েছে।’

Source link

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

You may have missed