China: মাত্র ৩ সেকেন্ডের ভিডিয়ো তৈরি করে সপ্তাহে রোজগার ১২০ কোটি টাকা! কোন জাদুতে? – Bengali News | China woman earns Rs 120 Crore a week with 3 second review videos

0

মাত্র ৩ সেকেন্ডের ভিডিয়ো তৈরি করে ৭দিনে ১২০ কোটি টাকা রোজগার Image Credit source: Twitter

বেজিং: বর্তমান সময়কে বলা হয় সোশ্যাল মিডিয়ার যুগ। বিশ্বজুড়ে লক্ষ লক্ষ মানুষ প্রতিদিন ভিডিয়ো কনটেন্ট তৈরি করছেন। সেগুলি ইউটিউব (YouTube), ইনস্টাগ্রাম (Instagram) এবং ফেসবুক (Facebook)-এর মতো সোশ্যাল মিডিয়া প্ল্যাটফর্মগুলিতে সেই সব ভিডিয়ো পোস্ট করেন, কিছু ভিউ এবং ফলোয়ার পাওয়ার আশায়। সোশ্যাল মিডিয়ায় ভিডিয়ো কনটেন্ট তৈরি বহু মানুষ আয়ের প্রধান উৎস হয়ে উঠেছে। তবে, এত মানুষ যারা কনটেন্ট তৈরি করছেন, তারা কি সকলেই সফল হন? না, সফল হন মুষ্টিমেয় কয়েকজনই। মাসে মাসে লক্ষ লক্ষ টাকা উপার্জন করেন তাঁরা। আর তাঁদের সাফল্যের মূল রহস্য হল অনন্যতা। অন্যর থেকে আলাদা হওয়ার ক্ষমতা। আর এভাবেই প্রতি সপ্তাহে প্রায় ১২০ কোটি টাকা আয় করছেন এক চিনা যুবতী। শুনলে অবাক লাগতে পারে, তিনি তৈরি করেন মাত্র ৩ সেকেন্ডের ভিডিয়ো!

সোশ্যাল মিডিয়ার ইনফ্লুয়েন্সারদের ভিড়ে, এভাবেই নিজস্বতা তৈরি করেছেন ঝেং জিয়াং জিয়াং। সারা বিশ্বে যে সকল সোশ্যাল মিডিয়া প্ল্যাটফর্ম চলে, চিনে তা চলে না। চিনের নিজস্ব সোশ্যাল মিডিয়া প্ল্যাটফর্ম রয়েছে। এই রকমই একটি হল, দউইন (Douyin)। এটাকে টিকটকের চিনা সংস্করণ বলা যায়। এই সোশ্যাল মিডিয়ায় ঝেং-এর ৫০ লক্ষের বেশি ফলোয়ার রয়েছে। আর এই বিপুল সংখ্যক ফলোয়ারকে মাত্র কয়েক সেকেন্ডের মধ্যে মোহিত করেন ঝেং। তাঁর এই বিস্ময়কর ক্ষমতার জোরেই তিনি এই অবিশ্বাস্য রোজগারে পৌঁছেছেন।

আসলে, অধিকাংশ সোশ্যাল মিডিয়া ইনফ্লুয়েন্সাররা, অনেক সময় নিয়ে, তাঁদের প্রচার করা পণ্যগুলির প্রতিটির বিশদ বর্ণনা দিয়ে থাকেন। নিজেদের কনটেন্টকে সম্বৃদ্ধ করতে অনেক কৌশল অবলম্বন করেন। কিন্তু, ঝেং হেঁটেছেন সম্পূর্ণ উল্টোপথে। তিনি তাঁর প্রচার করা পণ্যগুলি দেখান শুধুমাত্র তিন সেকেন্ডের জন্য। ঝেং-এর একজন সহকরী আছেন। লাইভ স্ট্রিম চলাকালীন, তিনি একটি কমলা বাক্স থেকে বিভিন্ন পণ্য এক এক করে ঝেং-এর হাতে হাতে তুলে দেন। তিনি সময় নেন বলতে গেলে কয়েক মিলিসেকেন্ড। আর তারপর, ঝেং সেই পণ্যগুলি ৩ সেকেন্ডের জন্য ক্যামেরায় সামনে দেখান। ওই তিন সেকেন্ডে পণ্যটির দাম, তার ব্যবহার ইত্যাদি জানিয়ে দেন। অতি অল্প সময়ে দর্শকদের মনোযোগ ধরে রাখার ক্ষমতার জোরেই ঝেং সোশ্যাল মিডিয়া ইনফ্লুয়েন্সারদের জগতে আলাদা জায়গা করে নিতে পেরেছেন।

Source link

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

You may have missed