‘সারা-ইব্রাহিমকে হারাতে বসেছি…’, খবর পেতেই কান্নায় ভেঙে পড়েন পাতৌদি – Bengali News | Tiger Pataudi was devastated about losing grandkids after Saif Ali Khan’s divorce

0

সইফ আলি খান, কেরিয়ারের শুরুতেই মন দিয়েছিলেন অভিনেত্রী অমৃতা সিংকে। মাত্র ২২ বছর বয়সে তাঁর সঙ্গে ঘর বেঁধেছিলেন তিনি। সইফ আলি খান ও অমৃতা আরোরা, যাঁদের সম্পর্ক নিয়ে নানা জল্পনা নানা সময় বলিউডের অন্দরমহলে জায়গা করে নিয়েছে। তাঁদের প্রেম থেকে শুরু করে, অসম বয়সে বিয়ে, সন্তান হওয়া এমনকি বিচ্ছেদ, সবটাই যেন খোলা বইয়ের মত। এই জুটির জীবনের প্রতিটা ধাপে কী কী ঘটেছে তা সবটাই জানা রয়েছে ভক্তদের। তবে কী জানেন এই সেলেব জুটির বিচ্ছেদের খবরে ভেঙে পড়েছিলেন টাইগার পাতৌদি। অর্থাৎ শর্মিলা ঠাকুরের স্বামী। সম্প্রতি কফি উইথ করণ শোয়ে এসে খোলসা করলেন শর্মিলা ঠাকুর। তাঁর কথায়, যখন সইফ আলি খান ও অমৃতা আলাদা হওয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছিলেন তখন তা মেনে নিতে পারেননি টাইগার পাতৌদি। কারণ একটাই, তিনি মোটেও মানতে পারছিলেন না যে তিনি আর তাঁর দুই নাতি, নাতনিকে দেখতে পাবেন না।

সারা আলি খান ও ইব্রাহিম খান, তারা নাকি দূরে সরে যাবে। যখন অমৃতা সরে যাওয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছিলেন সইফের পরিবার থেকে, বাড়ি থেকে বেরিয়ে আলাদা থাকার সিদ্ধান্ত নেন, তখন তিনি সন্তানদের নিজের কাছে রাখতে চেয়েছিলেন। দুই সন্তান বর্তমানে মায়ের সঙ্গেই থাকে। কিন্তু এই দূরত্ব মেনে নিতে পারেননি মোটেও পাতৌদি। শোকে ডুবেছিলেন তিনি। ঝড়ের গতিতে ভাইরাল হয়েছিল তাঁদের সেই খবর।

সইফ আলি খান ও অমৃতা সিং, তাঁদের মধ্যে সম্পর্কের সমীকরণ আজও বলিউডের অন্যতম চর্চিত বিষয়। দুইয়ের মধ্যে বিচ্ছেদ হলেও সম্পর্ক চর্চা কমেনি বিন্দুমাত্র। কেরিয়ারের শুরুতে যথন সইফ সবে পা রাখছেন বলিউডে, অমৃতা তখন প্রতিষ্ঠিত অভিনেত্রী। তখন তাঁর বয়স ৩৩, সইফ ২১। দুইয়ের মধ্যে প্রেম এতটাই বেড়ে যায় যে তাঁরা সংসার করার সিদ্ধান্ত নিয়েছিলেন। তবে সেই সম্পর্ক শেষ পর্যন্ত স্থায়ী হয়নি। এখন তাঁরা আলাদাই থাকেন।

Source link

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

You may have missed